মঙ্গলবার , জানুয়ারী ১৯ ২০২১
সদ্য সংবাদ

আইএমএফ কোভিড -১৯ মোকাবেলার জন্য বাংলাদেশকে ৭৩.২ কোটি মার্কিন ডলার ঋণ সহায়তা

আন্তর্জাতিক অর্থ তহবিল বা আইএমএফ বাংলাদেশকে কোভিড-১৯ মহামারী মোকাবেলা করার জন্য গত ২৯ শে মে ৭৩.২০ কোটি মার্কিন ডলার ঋণ সহায়তা মঞ্জুর করেছে। । জরুরি সহায়তার অংশ হিসেবে শূন্য সুদে আইএমএফ শুক্রবার এ ঋণ অনুমোদন করেছে বলে সংস্থাটির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে। বাংলাদেশী টাকায় এর পরিমান প্রায় ৬ হাজার ২ শত  কোটি টাকা।

আই এম এফ মনে করে দূর্বল অভ্যন্তরিণ চাহিদা এবং রফতানি ও রেমিটেন্স ব্যাপক ভাবে হ্রাসের সাথে কোভিড-১৯ মহামারী দ্বারা বাংলাদেশের অর্থনীতি মারাত্মকভাবে প্রভাবিত হয়েছে।
আইএমএফের এক্সিকিউটিভ বোর্ড বাংলাদেশের জরুরী আর্থিক চাহিদা এবং ব্যালেন্স অব প্যামেন্ট সমস্যা সমাধানের জন্য, আইএমএফ র‌্যাপিড ক্রেডিট সুবিধা এবং র‌্যাপিড ফিনান্সিং ইনস্ট্রুমেন্টের আওতায় বাংলাদেশের জন্য এই জরুরী ঋণ সহায়তা অনুমোদন করে।
আই এম এফ একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলে সরকার বাংলােেদশের জনগনের উপর মহামারীর প্রভাব হ্রাস করতে স্বাস্থ্য ও সামাজিক সুরক্ষা ব্যয় বাড়িয়ে এবং বেশ কিছু প্রণোদনা কার্যক্রম গ্রহন করে অথনৈতিক কার্যক্রম সমুন্নত রাখার চেষ্টা করছে।
আই এম এফ এর মতে কোভিড-১৯ মহামারী বাংলাদেশের অর্থনীতিতে মারাত্মক প্রভাব ফেলছে। বৈদেশিক মুদ্রা প্রাপ্তির দুটি প্রধান উৎস, রেডিমেড গার্মেন্টস (আরএমজি) রফতানি এবং রেমিট্যান্স প্রবাহ দ্রুত হ্রাস পাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
আইএমএফ তাদের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলেছে যে, মহামারীর প্রভাব প্রশমিত করতে এবং দেশের সামষ্টিক অর্থনৈতিক সম্ভাবনা সংরক্ষণে সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ বাস্তবায়ন শুরু করেছে। স্বাস্থ্য ব্যয় বৃদ্ধির পাশাপাশি, সরকারের তাৎক্ষণিকভাবে ঝুঁকিপূর্ণ জনগোষ্ঠীকে খাদ্য বন্টন এবং নগদ অর্থ স্থানান্তর কর্মসূচি গ্রহন , রফতানিমুখী শিল্পে মজুরি প্রদান নিশ্চিতকরণ, এবং ব্যবসায়ে এবং কৃষকদের জন্য মূলধন সরবরাহের দিকে মনোনিবেশ করেছে। মহামারী মোকাবেলায় সরকার শহরগুলো বন্ধ করে দেয়ায় অর্থনৈতিক কর্মকান্ডে প্রভাব ফেলবে এবং প্রবৃদ্ধিকে শ্লথ করে দেবে।
সরকার সামষ্টিক অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা রক্ষার এবং মহামারীকে নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য জন্য বিভিন্ন কর্মসূচী বাস্তবায়ন করছে। মূল নীতিগত চ্যালেঞ্জগুলির মধ্যে রয়েছে কর রাজস্ব আদায় বাড়ানো, ব্যাংকিং খাতের খেলাপি ঋণ সমস্যার সমাধান করা , এবং ব্যবসায়ের পরিবেশ উন্নত করতে বৈদেশিক প্রত্যক্ষ বিনিয়োগ আকর্ষণ করার জন্য অবকাঠামো ও প্রশাসনের উন্নতি করা।
আইএমএফ বিবৃতিতে জানায় যে তারা বাংলাদেশের পরিস্থিতি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছে এবং প্রয়োজনে আরও পরামর্শ এবং সহায়তা দেওয়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছে।

 

সম্পর্কিত ডেস্ক রিপোট

এছাড়াও চেক করুন

ঢাকা মেডিকেলের চারতলায় অগ্নিকাণ্ড সিগারেট থেকে

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউর পাশে বৃহস্পিতবার (৭ জানুয়াির) অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। তবে আগুন ছড়িয়ে …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।