ব্যাংককে ঋণ পেতে ভ্যাটের তথ্য যাচাই বাছাই করতে হবে

ব্যাংকের ঋণ প্রস্তাব অনুমোদনের ক্ষেত্রে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে নতুন নির্দেশনা দিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। এ নির্দেশ অনুযায়ী, এখন থেকে গ্রাহকরা ঋণের জন্য আবেদন করলে অন্যান্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টের সঙ্গে ‘অতিরিক্ত’ হিসেবে ভ্যাট রিটার্নের তথ্য যাচাই-বাছাই করতে হবে। অর্থাৎ ব্যাংক ঋণ অনুমোদনে ভ্যাটের তথ্য বাধ্যতামূলক করা হলো। এটি ছাড়া ঋণ দিলে এর জন্য দায়ী থাকবেন সংশ্নিষ্ট ব্যাংকের কর্মকর্তা। সম্প্রতি এনবিআরের অধীন ভ্যাট নিরীক্ষা, গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর থেকে বাংলাদেশ ব্যাংককে একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে। একই সঙ্গে সব বাণিজ্যিক ব্যাংক যাতে এ নির্দেশ পালন করে, সে বিষয়ে অনুরোধ করা হয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংককে।

এনবিআর বলেছে, বেশির ভাগ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান একাধিক অডিট রিপোর্ট তৈরি করে। ওইসব রিপোর্টের গ্রহণযোগ্যতা ও স্বচ্ছতা নিয়ে অভিযোগ উঠেছে। এতে করে সরকারের রাজস্ব ফাঁকির পাশাপাশি ঋণ বিতরণের ক্ষেত্রে বড় ধরনের ঝুঁকির মুখে পড়ছে ব্যাংকগুলো। নতুন এ উদ্যোগের ফলে অনিয়ম কমবে এবং শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠিত হবে আর্থিক খাতে। পক্ষান্তরে ব্যাংকাররা বলেছেন, এতে করে ঋণ অনুমোদন প্রক্রিয়ায় জটিলতা আরও বাড়বে, কালক্ষেপণ হবে। যা প্রকারান্তরে ব্যাংকের ওপর বাড়তি কাজের চাপ তৈরি করবে। এছাড়া ব্যবসায়ীরা হয়রানির আশঙ্কা প্রকাশ করেন।

আবার কোন ব্য্যংকার বলছেন ঋণ পাওয়ার জন্য কিছু  অসাধু ব্যবসায়ী তাদের ব্যবসার হিসেব ফুলিয়ে ফাপিয়ে দেখায় এবং এই ব্যবস্থায় এটা রোধ হবে।

জানা যায়, বর্তমানে কোনো গ্রাহক ব্যাংকের কাছে ঋণের জন্য আবেদন করলে ট্রেড লাইসেন্স, ভ্যাট নিবন্ধন সনদ, আর্থিক বিবরণী (অডিট রিপোর্ট), প্রজেক্ট প্রোপাইলসহ কমপক্ষে ৭/৮ ধরনের প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট লাগে। এগুলো পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ঋণ অনুমোদন করা হয়। এনবিআরের এই আদেশের ফলে নতুন করে ব্যাংকগুলোকে মাসিক ভ্যাট রিটার্নের তথ্য যাছাই-বাছাই করতে হবে।

চি

সম্পর্কিত Desk Report

এছাড়াও চেক করুন

আরও ৭৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৯৫৫

দেশে করোfনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ৭৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। একইসঙ্গে এই একদিনে আরও দুই হাজার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *